Monday, August 26, 2019

দুর্নীতির জন্য ২২ জন শুল্ক আধিকারিককে অবসর দিল কেন্দ্র।



 জুন মাসেই দুর্নীতি, যৌন হেনস্থার অভিযোগে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রকের ১২ জন উচ্চপদস্থ আধিকারিককে বাধ্যতামূলক অবসর নেওয়ার নির্দেশ দেয় অর্থমন্ত্রক। এ বার দুর্নীতির দায়ে শুল্ক দফতরের অন্তত ২২ জন কর্মকর্তাকে অবসর নিতে বাধ্য করল কেন্দ্র।

এই সব আধিকারিকের নাম একাধিক দুর্নীতির মামলায় জড়িয়ে থাকায় তাঁদের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নিল কেন্দ্র। সম্প্রতি এ প্রসঙ্গে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী একটি সংবাদ মাধ্যমকে দেওয়া সাক্ষাত্কারে জানান, শুল্ক দফতরের কয়েকজন দুর্নীতিগ্রস্থ আধিকারিক তাঁদের ক্ষমতার অপব্যবহার করে করদাতাদের হয়রান করছেন। “আমরা ইতিমধ্যে এর বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নিয়ে উল্লেখযোগ্য সংখ্যক আধিকারিককে বাধ্যতামূলক অবসরে পাঠিয়েছি। আমরা এই ধরণের আচরণ সহ্য করব না”, বলেন মোদী। দুর্নীতির দায়ে কেন্দ্রের কোপে অবসর নিতে বাধ্য হওয়া উচ্চপদস্থ শুল্ক আধিকারিকদের মধ্যে রয়েছেন কলকাতা, দিল্লি, মুম্বই, চেন্নাই, মেরট-সহ দেশের বড় বড় শহরের ২২ জন ‘হেভিওয়েট’ কর্তা।

সূত্রের খবর, এই ২২ জন শুল্ক আধিকারিক হলেন, প্রমোদ কুমার, ভি কে সিং, কে কে উইকে, ডিআর চতুর্বেদি, এসআর পারাতে, দীপক এম গাণিয়ান, কৈলাস ভার্মা, কেসি মন্ডল, ভিপি সিং, এমএস দামোর, আরএস গোগিয়া, নবনীত গোয়েল, কিশোর প্যাটেল, জেসি সোলঙ্কি, এসকে মন্ডল, অচিন্ত্য কুমার প্রামাণিক, এই ছাপারগেরে, লীলা মোহন সিং, এস অশোকরজ, ডি অশোক, গোবিন্দ রাম মালভিয়া এবং মুকেশ জৈন। 

No comments:

Post a Comment