Tuesday, September 24, 2019

পাকিস্তান ও চিনের সম্পত্তি বিক্রি করার জন্য মোদিসরকার বানাল মাস্টারপ্ল্যান। ১ লক্ষ্য কোটি টাকা লাভ হবে দেশের।



দেশ ভাগের পর পাকিস্তান আর ১৯৬২ এর পর চিনে চলে যাওয়া মানুষের ভারতে থাকা সম্পত্তি বেচার জন্য কেন্দ্রের মোদী সরকার জবরদস্ত পরিকল্পনা নিয়েছে। কেন্দ্র সরকার এবার এই শত্রু সম্পত্তি বেচার জন্য রিয়েল এস্টেট ইনভেস্টমেন্ট ট্রাস্ট (REIT) এর সহযোগিতা নিতে চলেছে। পিটিআই এর একটি রিপোর্ট অনুযায়ী, অর্থ মন্ত্রক এবার এই পরিকল্পনায় কাজ শুরু করেছে। REIT রিয়েল এস্টেটে বিনিয়োগের একটি মাধ্যম। ভারতীয় সিকিউরিটিজ এবং বিনিময় বোর্ড (SEBI) এটিকে নিয়ন্ত্রণ করে। REIT মডেল অনুযায়ী সম্পত্তি একটি ট্রাস্টের হাতে তুলে দেওয়া হয়। এরপর সংস্থা গুলো এই ট্রাস্টে বিনিয়োগ করে।



এক আধিকারিক সূত্র অনুযায়ী, কেন্দ্রীয় অর্থ মন্ত্রক সরকারী কোম্পানির প্রধান ব্যাবসা থেকে আলাদা সম্পত্তি আর শত্রু সম্পত্তি বিক্রয় এবং লিজে দেওয়ার জন্য পরামর্শ চালাচ্ছে। REIT আর SEBI এই নিয়ে ২০১৪ সালে একটি নির্দেশিকা জারি করেছিল। কিন্তু এখনো পর্যন্ত এই সেক্টরের কাজে গতি আনা সম্ভব হয়নি।



আধিকারিক এর অনুযায়ী, বিক্রয় করা শত্রু সম্পত্তি গুলোকে কাস্টোডিয়ান অফ এনিমি প্রপার্টি ফর ইন্ডিয়া অথবা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক চিহ্নিত করবে। এই সমন্ধ্যে রাজ্য সরকার এবং অন্য পক্ষ গুলোর সাথে কথাবার্তা বলা হবে। স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক অনুযায়ী, দেশে মত ১ লক্ষ কোটি টাকার শত্রু সম্পত্তি আছে। তাছাড়াও তিন হাজার কোটি টাকার শত্রু শেয়ারও আছে। এই সম্পত্তিতে সবথেকে বেশি ৪৯৯১ উত্তর প্রদেশ, ২৭৩৫ পশ্চিমবঙ্গ এবং ৪৮৭ টি সম্পত্তি দিল্লীতে আছে।



 তাছাড়াও ভারত ছেড়ে চিনে যাওয়া ৫৭ সম্পত্তি মেঘালয়ে, ২৯ পশ্চিমবঙ্গে, আর ৭ টি আসামে আছে। কেন্দ্র সরকার অনেক বছর ধরেই এই সম্পত্তি গুলোকে বিক্রি করার চেষ্টা চালাচ্ছে। দেশ ভাগের সময় পাকিস্তানে এবং ১৯৬২ এর যুদ্ধের সময় চিনে চলে যাওয়া মানুষদের সম্পত্তিকে শত্রু সম্পত্তি বলা হয়। ১৯৬৮ সালে সংসদে শত্রু সম্পত্তি অধিনিয়ম প্রস্তাব পাস করার পর, এই সম্পত্তি গুলো ভারত সরকারের অধীনে চলে যায়। তখন থেকেই এই সম্পত্তি গুলোর রক্ষণাবেক্ষণ এর দ্বায়িত্ব স্বরাষ্ট্র মন্ত্রকের হাতে।



দেশের অনেক রাজ্যেই শত্রু সম্পত্তি আছে। বহু বছর ধরে অনেক সংগঠনই এই সম্পত্তি গুলোকে সার্বজনীন স্তরে ব্যাবহার করার দাবি তুলছে। কেন্দ্র সরকার এখন এই শত্রু সম্পত্তি গুলোকে সার্বজনীন স্তরে ব্যাবহার করার অনুমতি দিয়েছে। ২০১৭ সালে মোদী সরকার শত্রু সম্পত্তির অধিনিয়মে বদল এনে, ওই সম্পত্তি গুলোর উপর থেকে শত্রুদের অধিকার খতম করে দেয়।  

No comments:

Post a Comment