Sunday, September 22, 2019

কাস্মীরি পন্ডিতদের রক্ষা করছেন আপনি মোদির হাতে চুমু খেয়ে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ প্রবাসী ভারতীয়ের।



জম্মু ও কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা বাতিলের পর থেকেই দেশব্যাপী মিশ্র প্রতিক্রিয়া তৈরি হয়েছে। বেশিরভাগের মুখে এই বিষয়ে কেন্দ্রের প্রশংসা শোনা গেলেও উলটো সুর গাইছেন অনেকে। পাকিস্তানের তরফে বিশ্বব্যাপী ভারতের ভাবমূর্তি কালিমালিপ্ত করার চেষ্টাও হয়েছে। এর জন্য বিভিন্ন জায়গায় তারা যে ডসিয়ের দিয়েছে তাতে ভারতের কয়েকজন রাজনৈতিক নেতার মন্তব্যকেও হাতিয়ার করা হয়েছে।

এরই মাঝে শনিবার আমেরিকার হিউস্টনে পৌঁছে গিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। আর সেখানে গিয়ে কাশ্মীর থেকে ৩৭০ ধারা বাতিলের জন্য উষ্ণ অভ্যর্থনা পেলেন প্রবাসী কাশ্মীরি পণ্ডিতদের থেকে। ৭০ বছর ধরে চলা নিয়মকে একলহমায় বাতিল করার জন্য সাধুবাদ পেলেন।  রবিবার সকালে আমেরিকায় বসবাসকারী কাশ্মীর পণ্ডিতদের একটি প্রতিনিধি দলের সঙ্গে দেখা করেন প্রধানমন্ত্রী। সৌজন্য বিনিময় ফাঁকে তাঁর হাতে চুমু খেয়ে ৩৭০ ধারা বাতিলের জন্য মোদিকে ধন্যবাদ জানান সুরিন্দর কল নামে কাশ্মীরি পণ্ডিত।


বলেন, ‘সাত লক্ষ কাশ্মীরির পক্ষ থেকে আপনাকে ধন্যবাদ জানাই।’ এরপর কাশ্মীরি পণ্ডিত সম্প্রদায়ের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বিভিন্ন আলোচনা করার ফাঁকে সবার সঙ্গে ‘নমস্তে শারদে দেবী’ শ্লোক পাঠও করেন নরেন্দ্র মোদি। প্রতিনিধি দলের সদস্যদের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে বলেন, ‘আপনারা অনেক কষ্ট সহ্য করেছেন। এখন আসুন নতুন কাশ্মীর তৈরি করি।’ এ প্রসঙ্গে ওই প্রবাসী কাশ্মীরি সুরিন্দর কল বলেন, ‘ঐতিহাসিক ওই সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য সারা বিশ্বে ছড়িয়ে থাকা সাত লক্ষ কাশ্মীরির পক্ষ থেকে ওঁনাকে ধন্যবাদ জানিয়েছি।

পাশাপাশি বলেছি যে কাশ্মীরকে শান্তিপ্রিয় ও উন্নয়নমুখী করে তোলার জন্য আমাদের সম্প্রদায় সরকারকে সবরকম সাহায্য করবে। উনি আমাদের বলেন, ‘আপনারা অনেক আত্মত্যাগ করেছেন। তবে আর তা করতে হবে না। আসুন সবাই মিলে নতুন কাশ্মীর গড়ে তুলি।’ আমাদের যুব প্রতিনিধিরা এই বলে প্রতিশ্রুতি দেন যে আমরা সবাই তাঁর স্বপ্ন পূরণ করার জন্য তৈরি আছি। আমরা এই বিষয়ে তাঁকে একটি স্মারকলিপিও জমা দিয়েছি।

 তিনি তা সাদরে গ্রহণ করেছেন।’ শনিবার আমেরিকায় এসে রবিবারের সকালের মধ্যেই প্রবাসী ভারতীয়দের বিভিন্ন প্রতিনিধি দলের সঙ্গে দেখা করেছেন প্রধানমন্ত্রী। তাঁদের মধ্যে কাশ্মীরি পণ্ডিতরা যেমন ছিলেন তেমনি ছিলেন শিখ সম্প্রদায় ও বোহরা সম্প্রদায়ের মানুষরাও। সবাই নরেন্দ্র মোদিকে দ্বিতীয়বার ক্ষমতায় আসার জন্য অভিনন্দন জানানোর পাশাপাশি বিভিন্ন বিষয়ে স্মারকলিপিও জমা দেন।  

No comments:

Post a Comment