Tuesday, September 17, 2019

এইবার পিছিয়ে পড়বে চিনও ভারতে তৈরী হচ্ছে এশিয়ার সবচেয়ে বড় এয়ারপোর্ট।



ফের কেন্দ্রীয় সরকারের হাত ধরে ভারত আরেক ধাপ এগিয়ে গেল আন্তর্জাতিক মহলে। জেবার আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর বিশ্বের চতুর্থ বৃহত্তম বিমানবন্দর হতে চলেছে এবং দেশের মধ্যে সবথেকে বৃহত্তম বিমানবন্দর হবে এটি। দিল্লি বিমানবন্দরটির আয়তন এই বিমান বন্দরের অর্ধেক হবে। আধুনিক সুবিধায় সজ্জিত এই বিমানবন্দরটিতে বিমানের পার্কিং করার জায়গা প্রচুর থাকবে।



 এক্ষেত্রে প্রতিবেশী দেশ চীন ভারতের ধারে- কাছে পৌঁছাতে পারবে না। যদিও সৌদি আরব এবং আমেরিকার দুটি বিমানবন্দরে পরে এই বিমান বন্দরের স্থান রয়েছে। এখনো পর্যন্ত সবথেকে বৃহত্তম এবং সবথেকে সেরা বিমানবন্দর এই দুটি দেশে রয়েছে।



 IGI এর পরে দিল্লি এনসিআর-এর জেভার অঞ্চলের দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক বিমান বন্দর গড়ে তোলার প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে।‌ এটি শুরু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই জেবার বিমানবন্দর টি দেশের মধ্যে সবচেয়ে বৃহত্তম বিমানবন্দর হিসেবে খ্যাতি লাভ করবে। জায়গার দিক থেকে বিচার করলে ইন্দিরা গান্ধী বিমানবন্দর জেবার বিমানবন্দর থেকে অনেকটা পেছনে থাকবে।



IGI বিমানবন্দরের আয়তন 2066 হেক্টর, নাভি মুম্বাইতে নির্মিত হতে যাওয়া বিমানবন্দরটি ও আয়তন হবে 2320 অ্যাক্টর অপরদিকে জেবার বিমানবন্দরটির আয়তন হতে চলেছে 5 হাজার হেক্টর। প্রায় 20 কোটি যাত্রী 2050 সালের মধ্যে এই বিমানবন্দর দিয়ে যাতায়াত করতে পারবে। এই দিক থেকেও বিচার করলে জেবার বিমানবন্দরটি IGI বিমানবন্দরটিকে ছাড়িয়ে যাবে।



 বর্তমানে IGI বিমানবন্দর থেকে প্রায় 6 কোটি মানুষ বিমান দিয়ে যাতায়াত করে। 2022 থেকে 2023 এরমধ্যে IGI বিমানবন্দরে যাতায়াতের সংখ্যা 10 কোটি হয়ে যাওয়ার অনুমান করা হচ্ছে। অনুমান করা হচ্ছে জেবা বিমান বন্দর থেকে বিমান সংস্থাগুলি পরিচালনা 2022 থেকে 2024 সালের মধ্যে শুরু হয়ে যাবে।প্রাথমিকভাবে অনুমান করা হচ্ছে এই বিমানবন্দর থেকে 8 কোটি মানুষ যাতায়াত করতে পারবে। বছরের পর বছর এই বিমানবন্দরে যাত্রী সংখ্যা বাড়বে বলে অনুমান করা হচ্ছে। IGI বিমানবন্দরে ধারণ ক্ষমতা শেষ হওয়ার পর থেকেই এই নতুন বিমানবন্দরটিতে যাত্রী সংখ্যা বাড়তে থাকবে।

No comments:

Post a Comment