Monday, September 16, 2019

বিজেপি যদি মস্তান হয়, তাহলে আমি ডন।




বিজেপি যদি মস্তান হয়,তাহলে আমি ডন। আজ লাভপুরে একটি সভায় এমনই মন্তব্য করলেন বীরভূম জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। এই সভায় অনুব্রত মণ্ডল ছাড়া উপস্থিত ছিলেন, রাজ্যের মৎস্য মন্ত্রী চন্দ্রনাথ সিনহা সহ তৃনমূল নেতৃত্ব। এইদিন এই সভায় তিনি বিজেপির উদ্যেশ্যে চড়া সূরে বলেন,“যেখানে,সেখানে পথ অবরোধ করছো। শুনবো না। কালকেই জেলা মিটিং ডেকেছি। মিটিং থেকে ফেরার পথে যেখানেই অবরোধ দেখবো প্রশাসন সরিয়ে দেয় তো ভালো কথা,নাহলে আমাদের কর্মীরা শুটিয়ে সরিয়ে দেবে।


 লজ্জা লাগেনা! তুমি উন্নয়ন করো,মানুষের পেটে ভাত দাও,চাকরি দাও, তুমি মানুষের পাশে থাকো। তাহলে তোমাকে আদর করবো, ভালোবাসবো। তোমার পাশে থাকবো। তোমাকে সেলাম জানাবো। আর তুমি যদি ভেবে নাও তুমি মস্তান,আর আমি কেউ নয় তাহলে তোমার ওটা ভুল ধারণা। তুমি যদি মস্তান হোও তাহলে আমি ডন। আর তুমি যদি মানুষ হোও তাহলে আমিও মানুষ। চোখ রাঙিয়ে কথা বলবেন না। জীবনে কাউকে ভয় পায় নাই। এখনো কাউকে ভয় পাবো না। আর উন্নয়ন করতে পিছিয়ে আসবো না।”



 এরপরেই তিনি এনআরসি প্রসঙ্গেও চড়া সূরে বলেন, “পশ্চিমবঙ্গে অনেক ধর্মের মানুষ আছে হিন্দু, মুসলমান, আদিবাসী এদেরকে পশ্চিম বাংলা থেকে তাড়িয়ে দেবে আর আমরা ছেড়ে দেবো, মোটেই ছাড়বো না। এটা মমতা ব্যানার্জি মেনে নেবে না। যতক্ষণ ওনার গায়ে রক্ত আছে ততক্ষণ। আমার জন্ম পশ্চিম বাংলায়, আমার বাবার জন্ম পশ্চিম বাংলায়, আমার দাদুর জন্ম পশ্চিম বাংলায়, আমার সন্তানের জন্ম পশ্চিম বাংলায়। তাহলে আমি ভারতবর্ষের বাইরের কি করে হলাম? তুমি ১৯৭১ সালের দলিল চাইছো, কটা বাগদির বাড়িতে আছে ১৯৭১ সালের দলিল। দেখে নেবো, রুখে দাঁড়াবো, ছেড়ে কথা বলবো না।”



 এই সভায় তিনি নিজের প্রসঙ্গ টেনে নিয়ে এসে বলেন,“আমি নাকি অসুস্থ! হ্যাঁ আমি অসুস্থ, একটা অপারেশন করিয়েও ছিলাম। বিজেপি বোধহয় ভেবেছিল আমি মরে যাবো। না! মরে আমি যাবো না,তোমাদের মেরে আমি মরবো।” তিনি আরোও বলেন,“আবার তুমি লাভপুর থানার সামনে এসে বলে গেছো মান্নানকে থানার সামনে ফেলে মারবে, বেঁধে মারবে। কিন্তু তারপর কী আমরা হাত গুটিয়ে বসে থাকবো।দেখবো তোমাদের মারটা। বলে গেলাম,এই ধরনের যারা ভাষা জ্ঞান করবে তাদের এমন শুটানো শুটাবেন গরু শোটানো করে দিন। কোন চিন্তা নেই। তারপর আমি দেখে নেব।”  

No comments:

Post a Comment